ঢাকা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭, সোমবার রাত; ০৮:২৯:০০
  

সারা দেশে শীতার্থ ও বস্ত্রহীন মানুষের আহাজারী শোনা গেলেও সরকার তাদের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসেনি- ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম

23 Feb 2013

ইসলামী শাসন প্রতিষ্ঠিত না থাকায় জনগণ রাষ্ট্রের কল্যাণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। দেশে ইনসাফপূর্ণ সমাজ প্রতিষ্ঠিত থাকলে আজ আপনাদেরকে লাইনে দাড়িয়ে সাহায্যে গ

৩১ ডিসেম্বর/২০১২, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ঢাকা মহানগরীর রামনা থানার উদ্যোগে রাজধানীতে দুঃস্থ ও ছিন্নমূল শীতার্থদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। শীতবস্ত্র বিতরণ করেন কেন্দ্র্রীয় মজলিশে শুরা সদস্য ও  থানা আমীর ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী মাওলানা হাবিবুর রহমান, থানা কর্মপরিষদ সদস্য ইউসুফ আলী মোল্লা, হাবিবুর রহমান খান, আতাউর রহমান সরকার ও থানা শিবির সভাপতি রাইহান উদ্দীন প্রমূখ।n

n

n

শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, আওয়ামী লীগ গণমানুষের কল্যাণের কথা বলে ক্ষমতায় এসে জনগণের জন্য কোন কাজ করেনি। সারা দেশে শীতার্থ ও বস্ত্রহীন মানুষের আহাজারী শোনা গেলেও সরকার তাদের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসনে। তাই আমারা আমাদের সীমিত সামর্থ নিয়ে আপনাদের পাশে এসে দাড়িয়েছি। মূলত দুর্গত মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে এগিয়ে আসা সরকারই দায়িত্ব ছিল। কিন্তু ইসলামী শাসন প্রতিষ্ঠিত না থাকায় জনগণ রাষ্ট্রের কল্যাণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। দেশে ইনসাফপূর্ণ সমাজ প্রতিষ্ঠিত থাকলে আজ আপনাদেরকে লাইনে দাড়িয়ে সাহায্যে গ্রহণ করতে হতো না। মানুষ হয়ে মানুষের কাছে হাত পাতা মানবতার অপমান। তাই গণমানুষের সকল সমস্যার সমাধান করতে হলে ন্যয় ও ইনসাফভিত্তিক ইসলামী সমাজ প্রতিষ্ঠার কোন বিকল্প নেই। তিনি ইসলামী সমাজ প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে সর্বস্তরের জনগণকে শরীক হওয়ার আহবান জানান।

n

n

n

তিনি বলেন, জামায়াত একটি নিয়মতান্ত্রিক, গণতান্ত্রিক ও আর্ত-মানবতার সেবায় নিয়োজিত রাজনৈতিক দল। জামায়াত রাজনৈতিক কর্মসূচীর পাশাপাশি জনহিতকর কাজও করে থাকে। তাই দেশ ও জাতির যেকোন ক্রান্তিকালে জামায়াত সর্বশক্তি নিয়োগ করে মানবতার কল্যাণে এগিয়ে এসেছে। আমাদের সাধ অনেক হলেও সাধ্য খুবই সীমিত। আর রাষ্ট্রের ব্যর্থতা কোন সংগঠনের পক্ষে  পূরুণ করা সম্ভব নয়। তাই রাষ্ট্রকে কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করতে হলে ইসলামকে বিজয়ী আদর্শ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।